ঘূষের টাকা নেয়ার সময় হাতে নাতে ধরা, ২ পুলিশকে পিটিয়ে হাসপাতালে পাঠাল এলাকাবসি..!!

স্টাফ রিপোর্টার॥ চাঁদা নিতে গিয়ে গণপিটুনির শিকার হয়েছেন রাজশাহীর গোদাগাড়ী মডেল থানার দুই পুলিশ সদস্য। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে উপজেলার চকপাড়া আদিবাসী পল্লিতে এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত দুই পুলিশ সদস্য হলেন, গোদাগাড়ী থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) ফারুক হোসেন ও কনস্টেবল শাহাদাত হোসেন। গণপিটুনির পর তাদের আটকে রাখেন আদিবাসীরা। পরে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে তাদের উদ্ধার করে।

চকপাড়া আদিবাসী পল্লির বাসিন্দারা জানান, এই দুই পুলিশ সদস্য সন্ধ্যায় সাদা পোশাকে আদিবাসী পল্লির চিকন মুড়িয়ারির বাড়ি গিয়েছিলেন। দেশি মদ তৈরির অভিযোগে তার কাছে ১০ হাজার টাকা দাবি করেন ওই দুই পুলিশ সদস্য। চাঁদা দিতে না চাইলে তারা চিকন মুগিয়ারিকে আটকের ভয় দেখান। এ ঘটনা জানাজানি হলে আদিবাসী পল্লির বাসিন্দারা এএসআই ফারুক ও কনস্টেবল শাহাদাতকে ধরে গণপিটুনি দেন। পরে

মোটরসাইকেলসহ তাদের আটকে রাখা হয়। চকপাড়া গ্রামের আদিবাসী অজিত মুড়িয়ারি বলেন, নিজেদের পান করার উদ্দেশ্যে আদিবাসীদের কেউ কেউ কিছু দেশি মদ তৈরি করেন। এদের একজন ভবেশ মুড়িয়ারি। কয়েকদিন আগে তাকে জিম্মি করে ১৪ হাজার টাকা নিয়ে যান ফারুক ও শাহাদাত। গরু বিক্রি করে এই টাকা দুই পুলিশ সদস্যের হাতে তুলে দেন ভবেশ। এ ঘটনায় ক্ষুদ্ধ ছিলো এলাকার লোকজন। এরই ভেতর আবারও চাঁদাবাজি করতে এলে তাদের গণপিটুনি দেয়া হয়েছে।
খবর পেয়ে রাতে গোদাগাড়ী মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) হাসমত আলী ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছান। তিনিই অবরুদ্ধ দুই পুলিশের উদ্ধার করেন। অভিযুক্ত পুলিশ সদস্যদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ারও আশ্বাস দেন তিনি।

এ বিষয়ে গোদাগাড়ী মডেল থানার পরিদর্শক হাসমত আলী বলেন, বিষয়টি জেলার পুলিশ সুপারকে জানানো হয়েছে। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করা হবে।